মেনু নির্বাচন করুন
  জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের কার্যালয়, রাজশাহী। অফিসের নাম ঃ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার, জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের কার্যালয়, রাজশাহী। স্থান               ঃ রাজপাড়া(রাজশাহী কোর্টের সন্নিকটে), রাজশাহী। ওয়েব ঠিকানা      ঃ www.dgfood.gov.bd ই-মেইল            ঃ dcf.rjs@dgfood.gov.bd অফিস প্রধানের পদবী  ঃ জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক। মন্ত্রণালয়ের নাম       ঃ খাদ্য মন্ত্রণালয়। অফিসের কার্যক্রম     ঃ প্রশাসনিক কাজ- জেলার অভ্যমত্মরে কর্মচারীদের বদলী করা, চালকল ও বিভিন্ন খাদ্যশস্যের লাইসেন্স প্রদান করা, সংগ্রহ মৌসুমে কৃষকদের নিকট হতে ধান ও গম, লাইসেন্স প্রাপ্ত চালকল মালিকদের নিকট হতে সরকার নির্ধারিত মূল্যে চাল সংগ্রহ করে গুদামে রাখা, ভিজিডি, ভিজিএফ, টিআর, কাবিখা, জিআর ইত্যাদি খাতে খাদ্যশস্য বিলি/বিতরণ আদেশ দেয়া।

সাধারণ তথ্য

প্রশাসনিক কাজ- জেলার অভ্যমত্মরে কর্মচারীদের বদলী করা, চালকল ও বিভিন্ন খাদ্যশস্যের লাইসেন্স প্রদান করা, সংগ্রহ মৌসুমে কৃষকদের নিকট হতে ধান ও গম, লাইসেন্স প্রাপ্ত চালকল মালিকদের নিকট হতে সরকার নির্ধারিত মূল্যে চাল সংগ্রহ করে গুদামে রাখা, ভিজিডি, ভিজিএফ, টিআর, কাবিখা, জিআর ইত্যাদি খাতে খাদ্যশস্য বিলি/বিতরণ আদেশ দেয়া।

সাংগঠনিক কাঠামো

জনশক্তি

ছবিনামপদবিফোনমোবাইলইমেইল
মোঃ সুজা আলমজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক0721772148০১৭১২০২৬২৩৮dcf.rjs@dgfood.gov.bd
জনাব মো: জাকির হোসেনসহকারী খাদ্য নিয়ন্ত্রক(ভারপ্রাপ্ত)০৭২১৭৭২৩৪৫০১৭১৬৬১৮৩৭৩
তাছলিমা খাতুনকারিগরী খাদ্য পরিদর্শক০৭২১৭৭২৩৪৫dcfraj@gmail.com
জনাব মো: গোলাম মোস্তফাআঞ্চলিক রক্ষণাবেক্ষণ কর্মকর্তাdcfraj@gmail.com
জনাব মো: মকলেছুর রহমানখাদ্য পরিদর্শক, বোয়ালিয়া, রাজশাহী

গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পসমূহ

রাজশাহী জেলায় নতুন গুদাম নির্মাণ সংক্রান্ত তথ্যঃ

                                                            

প্রকল্পের নাম

উপজেলার নাম

এলএসডির নাম

গুদামের ধারণ ক্ষমতা সহ নির্মিত/নির্মানাধীণ/প্রসত্মাবিত

গুদাম সংখ্যা

মমত্মব্য

উত্তরাঞ্চলে ১.১০ লক্ষ মেঃটন ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন গুদাম নির্মাণ প্রকল্প

পবা

নওহাটা

১টি= ১০০০ মেঃটন

নির্মাণ শেষে হস্তান্তরিত

পুঠিয়া

পুঠিয়া

১টি= ১০০০ মেঃটন

বাগমারা

ভবানীগঞ্জ

১টি= ৫০০ মেঃটন

মোহনপুর

মোহনপুর

উত্তরাঞ্চলে ১.৩৫ লক্ষ মেঃটন ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন গুদাম নির্মাণ প্রকল্প

গোদাগাড়ী

গোদাগাড়ী

৩টি= ১০০০´৩= ৩০০০ মেঃটন

নির্মাণ শেষে হস্তান্তরিত

উত্তরাঞ্চলে ১.০৫ লক্ষ মেঃটন ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন গুদাম নির্মাণ প্রকল্প

দূর্গাপুর

দূর্গাপুর

১টি= ৫০০ মেঃটন

প্রস্তাবিত

বাঘা

বাঘা

১টি= ৫০০ মেঃটন

তানোর

তানোর

১টি= ৫০০ মেঃটন

কামারগাঁ

কর্মচারীবৃন্দ

ছবিনামপদবি
জনাব মো: শরীফুল ইসলাম প্রধান সহকারী
মোঃ নুরুল আলম ডাটা এন্ট্রি/কন্ট্রোল অপারেটর
মোসা: রোজিনা আক্তারউচ্চমান সহকারী
মোসাঃ শাহনাজ পারভিন অডিটর
জনাব মোঃ মামুন চৌধুরীঅফিস সহকারী কাম কিম্পউটার মুদ্রাক্ষরিক
জনাব মো: মশিউর রহমানঅফিস সহকারী কাম কিম্পউটার মুদ্রাক্ষরিক
জনাব মোঃ শফিকুল ইসলাম গাড়ী চালক
জনাব মোঃ ইসতিয়াক আহমেদ স্প্রেম্যান
জনাব মো: শাহাদত হোসেনস্প্রে ম্যান
জনাব মো: সাইদুর মানিকনিরাপত্তা প্রহরী

যোগাযোগ

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার, জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের কার্যালয়, রাজশাহী।

স্থান               ঃ রাজপাড়া(রাজশাহী কোর্টের সন্নিকটে), রাজশাহী।

ওয়েব ঠিকানা      ঃ www.dgfood.gov.bd

ই-মেইল            ঃ dcf.rjs@dgfood.gov.bd

ফোনঃ ০৭২১৭৭৪৮২১ ফ্যাক্সঃ ০৭২১৭৭২০৮৬

সিটিজেন চার্টার

সিটিজেন চার্টার

জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের দপ্তর, রাজশাহী।

 

১। সার্বিক খাদ্য ব্যবস্থাপণা সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার স্বার্থে সরকারের দিক নির্দেশনা

     মোতাবেক যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ।

২। উৎপাদককে ন্যায্য মূল্য প্রদান ও আপদকালীন মজুদ গড়ার লÿÿ্য ধান, চাল ও গম

     নির্ধারিত ক্রয়কেন্দ্রের মাধ্যমে সংগ্রহ ও গুদামজাত করন।

৩। আমন ও বোরো মৌসুমে সরকারী সংগ্রহ কার্যক্রম বাসত্মবায়নের লÿÿ্য চালকল মালিকদের সঙ্গে

     চুক্তি সম্পাদন করা ও সংগ্রহ কার্যক্রম ত্বরান্বিত করা।

৪। ভবিষ্যৎ আপদকালীন চাহিদা মেটানোর জন্য সরকারী খাদ্য গুদামে খাদ্যশস্যের মজুদ 

     গড়েতোলা।

৫। উপজেলার খাদ্যশস্যস্যের ভবিষ্যৎ চাহিদার প্রেÿÿতে অভ্যমত্মরীণ চলাচল সূচীর মাধ্যমে গুদামে

     খাদ্যশস্যের মজুদ গড়েতোলা।

৬। খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর আওতায় গ্রামীণ গরীব জনগণের মধ্যে ১০/- টাকা কেজি মূলে চাল

     বিতরণ।

৭। ৪র্থ শ্রেণীর সরকারী কর্মচারীদের মাঝে স্বল্প মূল্যে খাদ্যশস্য বিতরণ।

৮। ওএমএস কার্যক্রমের আওতায় ওএমএস খাতে খাদ্যশস্য বরাদ্দ, ভোক্তা পর্যায়ে 

     বিলি/বিতরণ, তদারকি করন এবং  সরকার নির্ধারিত মূল্যে বিক্রি নিশ্চিত করা।

৯। সেনাবাহিনী, পুলিশ, বিজিবি, আনসার, ফায়ার সার্ভিস ও জেলখানা ইত্যাদি

     সংস্থাকে বিশেষ জরম্নরি গ্রাহক হিসাবে খাদ্যশস্য সরবরাহ করন।

১০। সামাজিক ব্যবস্থায় জিআর, ভিজিডি, ভিজিএফ, টিআর, কাবিখা ইত্যাদি কর্মসূচীর মাধ্যমে

     খাদ্যশস্য সরবরাহ করন।

১১। খাদ্যশস্যের বাজার দর স্থিতিশীল রাখার লÿÿ্য নিয়মিত বাজার মনিটরিং ও উর্দ্ধতন

     কর্তৃপÿকে বাজার দর অবহিত করন।

১২। বিনির্দেশ মোতাবেক খাদ্যশস্য সংগ্রহ ও সংগৃহীত খাদ্যশস্যের মূল্য নির্ধারিত সময়ে

     মধ্যে (১০ দিন) সংশিস্নষ্ট পেইং এজেন্ট (ব্যাংককে) পুনর্ভরণ করন।

১৩। অধীনস্থ কর্মচারীদের যাবতীয় সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করণের কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণ 

     করা, তাঁদেরকে দায়িত্ব পালনে উদ্ধুদ্ধ করা।

১৪। চালকল আদেশ/২০০৮ অনুযায়ী জেলাধীন চালকল মালিকদের চালকলের লাইসেন্স

     প্রদান ও ৩০ জুন তারিখের মধ্যে নবায়ন করা। অনুরম্নপভাবে জেলাধীন খাদ্যশস্য 

     ব্যবসায়ীদের খাদ্যশস্য লাইসেন্স প্রদান ও ৩০ জুন তারিখের মধ্যে নবায়ন করা।

১৫। খাদ্যব্যবস্থাপনা সংক্রামত্ম সময়োপযী অন্যান্য কার্যক্রম গ্রহণ।

কী সেবা কীভাবে পাবেন

২.২ নাগরিক-সেবার তথ্য সারণি

ক্রমিক

নং

সেবা প্রদানকারী অফিসের নাম

              সেবার নাম

দায়িত্ব প্রাপ্ত কর্মকর্তা / কর্মচারী

সংক্ষেপে সেবা প্রদানের পদ্ধতি

সেবা প্রাপ্তির প্রয়োজনীয় সময়

প্রয়োজনীয় ফি/ ট্যাক্স / আনুষাঙ্গিক খরচ

সংশ্লিষ্ট আইন-কানুন

/ বিধি-বিধান/ নীতিমালা

নির্দিষ্ট সেবা পেতে

ব্যর্থ হলে পরবর্তী

প্রতিকারকারী কর্মকর্তা

০১

উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রণ অফিস

খাদ্য শস্য সংগ্রহ

উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক, গুদাম কর্মকর্তা

কৃষক তার উৎপাদিত ধান/ গম গুদামে বিক্রির জন্য নিয়ে আসলে গুদাম কর্মকর্তা ও উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক ওজন ও মান সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে মূল্য পরিশোধের নিমিত্তে wqsc ( Weight, Quality, Stock Certificate, ওজন ,মান ও মজুদ সার্টিফিকেট) ইস্যু করেন। কৃষক স্থানীয় পেয়িং ব্যাংক হতে wqsc জমা দিয়ে সরাসরি নগদ মূল্য গ্রহণ করেন। একইভাবে মিলার চাল সরবরাহে আগ্রহ প্রকাশ করে আবেদন করলে তার মিলের ক্যাপাসিটি অনুসারে বরাদ্দ দেয়া হয়। নিধার্রিত  সময়ের মধ্যে চাল সরবরাহ করলে একইভাবে মূল্য পরিশোধ করা হয়।

০১ থেকে ০২ দিন

ধান/গমের ক্ষেত্রে খরচবিহীন।

 

তবে চাল ক্রয়ের ক্ষেত্রে চুক্তি সম্পাদনের জন্য ৩০০/- টাকার নন-জুডিশিয়াল স্ট্যাম্প

খাদ্য শস্য (ধান, চাল, গম) সংগ্রহ নীতিমালা ২০১০ এর শর্তানুসারে –

  • ধান ও গমের ক্ষেত্রে কৃষক হিসাবে কৃষি বিভাগের প্রত্যয়ন
  • চালের ক্ষেত্রে লাইসেন্সধারী চুক্তিবদ্ধ মিলার
  • ধান, চাল ও গমের মান সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক

জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক / আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক

০২

--

লাইসেন্স ইস্যু

উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক

ব্যবসায়ীর নিকট থেকে আবেদনপত্র পাওয়ার পর খাদ্য পরিদর্শক  ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন/ যাচাই করে সঠিক তথ্য পাওয়া সাপেক্ষে এবং চালানের মাধ্যমে টাকা জমা দেয়ার পর লাইসেন্স প্রদান করা হয়।

০৪-০৫ দিন

লাইসেন্স ফি-

খুচরা পর্যায়ে= ১,০০০/-টাকা; 

পাইকারী পর্যায়ে=৫,০০০/- টাকা

এস.আর.ও নং-১১২-আইন/ ২০১১

জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক

০৩

--

ফেয়ার প্রাইস

উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক

 

একটি উপজেলা/ থানার সকল বিভাগের সরকারি ও আধা সরকারি কর্মচারীগণ এ সেবা পেয়ে থাকে। প্রথমে সকল কর্মচারীদের তালকা করে উপজেলা কমিটিতে সুবিধাভোগী নির্বাচন করা হয়। উপজেলা খাদ্য অফিস সুবিধাভোগীদের নামে ফেয়ার প্রাইস কার্ড তৈরি করে সরবরাহ করে। অত:পর নিয়োগকৃত ডিলারকে ডিও ইস্যুর মাধ্যমে চালানে জমাকৃত টাকার বিপরীতে খাদ্যশস্য প্রদান করা হয়। ডিলার  নির্দিষ্ট স্থানে ও দরে উপজেলা কমিটির অনুমোদিত তালিকা অনুযায়ী জনগণের মাঝে খাদ্যশস্য বিক্রয় /বিতরণ করেন।

সেবা গ্রহণকারী ডিলারের বিক্রয় কেন্দ্রে পৌঁছার পর ১ থেকে ২ ঘন্টা

সরকার কর্তৃক সময়ে সময়ে নির্ধারিত মূল্যে বিতরণ

ফেয়ার প্রাইস নীতিমালা/২০১০ (সংশোধিত)

জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক

০৪

-

ওএমএস

উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক

 

নিয়োগকৃত ডিলারকে ডিও ইস্যুর মাধ্যমে চালানে জমাকৃত টাকার বিপরীতে খাদ্যশস্য প্রদান করা হয় এবং খাদ্য শস্যের বিক্রিদর ও বিক্রির নীতিমালা অবহিত করা হয়। ডিলার নির্দিষ্ট স্থানে ও দরে মাষ্টার রোলের মাধ্যমে নিম্ন আয়ের জনগণের মাঝে খাদ্যশস্য বিক্রয় /বিতরণ করে থাকেন

সেবা গ্রহণকারী ডিলারের বিক্রয় কেন্দ্রে পৌঁছার পর ১ থেকে ২ ঘন্টা

সরকার কর্তৃক সময়ে সময়ে নির্ধারিত মূল্যে বিতরণ

ওএমএস নীতিমালা- ২০১২

উপজেলা/জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক

তথ্য অধিকার

প্রক্রিয়া সরণী

সেবা ক্রমিক নং

সেবার নাম

সেবার ধরণ

সেবার পর্যায়

(মহানগর/ জেলা/ উপজেলা/ ইউনিয়ন)

১।

খাদ্য শস্য সংগ্রহ

সংগ্রহ

উপজেলা/ জেলা

২।

লাইসেন্স ইস্যু, নবায়ন সংক্রান্ত

লাইসেন্স প্রদান

উপজেলা/ জেলা/ মহানগর

৩।

ফেয়ার প্রাইস (নায্যমূল্য)

সরবরাহ

ইউনিয়ন/ উপজেলা/ জেলা/মহানগর

৪।

ওএমএস

সরবরাহ

উপজেলা/ জেলা/ বিভাগ/ মহানগর

বিজ্ঞপ্তি

আইন ও সার্কুলার